Other

শীতকালীন সবজির নামের তালিকা

আবহাওয়ার দিক দিয়ে বিচার করলে আমাদের এই বাংলাদেশ ৬টি ঋতুর দেশ। এই ছয়টি ঋতুর বাংলা ক্যালেন্ডার অনুযায়ী বছরের ৫ম তম ঋতু হলো শীত ঋতু। শীতকালীন সবজির নামের তালিকা সম্পর্কে মূলত আজকের আমাদের আলোচনা।

শীতকালীন সবজির নামের তালিকা
শীতকালীন সবজির নামের তালিকা

শীতকালীন সবজির নামের তালিকা

শীতকালীন সবজির তালিকা সম্পর্কে যদি বলা তাহলে এসকল সবজি মধ্যে হলো:

  • লাউ
  • বাঁধাকপি
  • ফুলকপি
  • শিম
  • ব্রকলি
  • মুলা
  • পেঁয়াজকলি
  • মটরশুঁটি
  • শালগম
  • পালংশাক
  • টমেটো
  • গাজর
  • ধনিয়া পাতা

এসকল সবজি যেমন সুস্বাদু ও পুষ্টি উপাদান সমৃদ্ধ। আসুন আমরা এবার এসকল সবজির উপকারিতা সম্পর্কে জেনে নি,

লাউ

শীতকালীন সবজির মধ্যে লাউকে অন্যতম একটি সবজি বলে অবহিত করা হয়। লাউ খাবার ফলে আমাদের দেহের আদ্রতা ঠিক থাকে। তাছাড়া লাউ আমাদের দেহের জলের চাহিদা পূর্ণ করে থাকে। লাউ এ প্রচুর পরিমানে জল থাকে। যাদের দেহে জলশূন্যতা রয়েছে তাদের লাউ খাওয়া উচিত। কিডনির কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করতে, উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আনতে, কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যা সমাধানের জন্য আপনি লাউ খেতো পারেন। এছাড়া যাদের চুলে পড়ে যাচ্ছে ও চুল পেকে যাচ্ছে তাদের লাউ খাওয়া উচিত এতে চুল পেকে যাওয়ার থেকে রোধ ও চুলের গোড়া শক্ত হয়। 

বাঁধাকপি

যদি শীতকালীন পাতা জাতীয় সবজির কথা বলা হয় তাহলে সবার প্রিয় একটি সবজির নাম৷ মনে পড়বে সেটি হলো বাঁধাকপি। যাদের গ্যাসটিক সমস্যা রয়েছে তাদের জন্য কাচা বাঁধাকপির রস উপকার। তবে এটি রান্না করে খাওয়া এটি বেশ জনপ্রিয়। বাঁধাকপিতে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ একটি সবজি। আমাদের দেহের বেশ কয়েকটি পুষ্টির চাহিদা পূরণ করে থাকে বাঁধা কপি। 

ফুলকপি

ফুলকপি যা একটি শীতকালের সবজি। এই সবজি দিয়ে তরকারি রান্না করা হয় তাছাড়া মাছের ঝোলের তরকারি হিসেবে ব্যবহার করা হয়। তাছাড়া কেউ যদি ভাজি করে খেতে চান তাহলে ফুলকপি ভাজি করে খেতে পারে। তবে ফুলকপিকে সবচেয়ে বেশি তরকারিতে বেশি ভালো লাগে সকলের মতামত অনুযায়ী। ফুলকপিতে ভিটামিন “এ” ও আয়রন থাকে। আমাদের দেহের এই উপাদানের ঘাটতি উপশমে কার্যকর ভূমিকা রাখে। তাছাড়া বিজ্ঞানীদের গবেষণা অনুযায়ী জানা যায়,ফুলকপি মলাশয়ের ক্যান্সার হবার থেকে প্রতিরোধ করে। 

See also  আজকের বাজরিগার পাখির দাম

শিম

শিম আমাদের কাছে একটি জনপ্রিয় সবজি। শীমের বীচি অনেকের কাছে প্রিয় একটি খাবার। আবার শুধু শিম অনেকের কাছে প্রিয়। শিমের মধ্যে অনেক প্রোটিন, শর্করা ও অন্যান্য উপদান থাকে। যা আমাদের দেহের চাহিদা পূরণ করে। 

ব্রকলি

দেখতে অনেকটা ফুলকপির মতো হলোও এটি ফুলকপি নয় এই সবজির নাম ব্রকলি। ব্রকলিতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি থাকে। ব্রকলি বহুমূত্র, হৃদরোগ ও ক্যান্সার প্রতিরোধ করে থাকে। 

মুলা

শীতকালের আরেকটি সবজি মুলা। অন্যান্য সময়ে মুলা পাওয়া গেলেও শীতের মুলার স্বাদ তুলনামূলক একটু বেশি ভালো লাগে। মুলা সবচেয়ে বেশি ভাজি হিসেবে আমরা খাবার হিসেবে খেয়ে থাকি। মুলাতে ভিটামিন সি রয়েছে। 

পেঁয়াজকলি

শীতকালের পেঁয়াজকলি পাওয়া যায়। যা মূলত পেঁয়াজ লাগনোর পর পেঁয়াজের উপরিভাগের অংশ। এই পেঁয়াজকলি খুবই সুস্বাদু ও এটি পুষ্টি উপাদান সমৃদ্ধ। পেঁয়াজকলি মূলত ভাজি হিসেবে খেতে সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে। 

মটরশুঁটি

মটরশুঁটি অনেকেই শীতাকলে সবজি হিসেবে ধরেন আবার অনেকেই সবজি হিসেবে বিবেচনা করেন না। তবে আপনি যদি মটরশুঁটি খেতে চান তান তাহলে আপনি আপনার আঞ্চলিক পদ্ধতি অনুসরণ করে রান্না করতে পারেন। 

শালগম

শালগমে বিভিন্ন প্রকার ভিটামিন বিদ্যমান থাকে। এটি মূলত শীতের শুরুতে সবজি বাজারে পাওয়া যায়।শালগমে খাবার হিসেবে গ্রহণে শরীর থেকে  খারাপ কোলেস্টেরল ও  উচ্চরক্ত চাপ কমায়। এছাড়া হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতিতে ও দৃষ্টিশক্তির উন্নতিতে এবং পরিপাকের উন্নতি ঘটাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। 

পালংশাক

শীতকালীন সবজির কথা বলা হচ্ছে আর পালংশাক বাদ থাকবে এমনটা নয়। এটি মূলত ভাজি হিসেবে সবচেয়ে বেশি মানুষ খাবার হিসেবে খেয়ে থাকে তবে পালংশাক রান্না করার আলাদা পদ্ধতি রয়েছে যা আপনাকে অনুসরন করতে হবে। পালংশাক এর বিভিন্ন উপকারিতা তা রয়েছে ও পালংশাক পুষ্টি সমৃদ্ধ একটি সবজি। 

টমেটো

টমেটো বর্তমানে সব ঋতুতে পাওয়া গেলেও শীতকালে টমেটোর চাহিদা বৃদ্ধি পায় ও এসময়ে যেহেতু টমেটোর সময় সেহেতু এ সময় টমেটো অনেকেই দাম কম হলে ক্রয় করে থাকেন। কেউ সালাত,তরকারিতে ব্যবহার করেন আবার কেউ চাটনি তৈরিতে টমেটো ব্যবহার করেন। 

See also  শীতকালীন ফুলের নামের তালিকা

ধনিয়া পাতা

বাঙালিদের কাছে শীতকালে খাবারে সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করা হয় সেটি হলো ধনিয়া পাতা।

শেষ কথা

আশা করি আমরা আপনার কাছে, শীতকালীন সবজির নামের তালিকা উপস্থাপন করতে পেরেছি। এই পোস্টটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন প্রশ্ন থাকে কমেন্ট করে জানাতে পারেন।

আরে পড়তে পারেন: শীতকাল সম্পর্কে ১৫ টি বাক্য

(প্রতিনিয়ত নতুন নতুন আপডেট পেতে আমাদের গুগল নিউজ ও ফেসবুক পেজ এ অনুসরণ করুন)

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button